bangla mojar sms | বাংলা মজার কৌতক এসএমএস

bangla mojar sms | বাংলা মজার কৌতক এসএমএস, khub hasir sms , khub hasir sms , bangla love sms, bangla funny sms,funny sms for girlfriend bangla,love sms for wife bangla, love sms for wife bangla,very funny sms,very funny sms,very funny sms,very funny sms, bangla comment sms, bangla sms.

bangla mojar sms.https://bloggpower.com/

একটা লোক বৃষ্টিতে ভিজতে ভিজতে যাচ্ছে , তা দেখে এক সুন্দরী মহিলা :’ছাতায় আসুন না ?’ লোকটি :’না বোন, আমি ঠিক আছি’..নীতিবাক্য:’ নীতিবাক্য-টাক্য কিছু নয়, পিছনে লোকটির স্ত্রী আসছিল !!’


আপনার কি মেয়েদের পছন্দ ? মেয়েদের কথাবার্তা শুনতে চান ? মেয়েরা সর্বদা আপনাকে ঘিরে থাকুক চান ?..থাহলে ফুচকা বেচুন !!


দুই মাতাল রেললাইন ধরে হাঁটতে হাঁটতে এগিয়ে যাচ্ছে। —একজন বলল ‘এত লম্বা সিঁড়ি! উঠতে উঠতে ক্লান্ত হয়ে গেলাম।’অন্যজন :’আরেকটু অপেক্ষা করো। ওই দেখো, লিফট আসছে। ‘!


রোগী: ডাক্তার সাহেব, আমার মনে হয় চশমা লাগবে । ক্যাশিয়ার: অবশ্যই আপনার চশমা লাগবে; কারণ আপনি এখন ব্যাংকে।


মেয়ে : আজকে আমার বাবা তোমার বাইকে আমাকে দেখে ফেলেছে | ছেলে : সেকি ! তারপর ? মেয়ে : তারপর আর কি , বাসের ভাড়াটা ফেরত নিয়ে নিল !!


জঙ্গলে এক শিকারী এক বাঘের মুখোমুখি ,এদিকে বন্দুকে গুলি শেষ !তখন ছোটবেলার গল্প মনে করে তিনি নিশ্বাস বন্ধ করে মড়ার ভান করে পড়ে রইলেন | বাঘ এল ,শুঁকলো,তারপর এক জোর থাপ্পড় কষিয়ে বলল ‘এসব পায়তারা ভাল্লুকের সাথে মারবি’!


টিচার : তোমার বাবার বয়স কত ?’ছাত্র : আমার সমবয়সী ‘টিচার : সেটা কি করে সম্ভব !?’ছাত্র :’আমি জন্মানোর পরেই তো উনি বাবা হলেন ‘!


মেয়েরা ফলের মত মিষ্টি , কিন্তু ছেলেরা আবার ফলের স্যালাড খেতেই বেশি পছন্দ করে ;-)!


১ম মাতাল :তুই মানুষ না আরসোলা?২য় মাতাল :মানুষ। ১ম মাতাল :কী করে বুঝলি? ২য় মাতাল : আরসোলা হলে স্ত্রী ভয় পেত। !


ডাক্তার : আপনার স্বামীর বিশ্রাম ও শান্তি দরকার , এই নিন কিছু ঘুমের বড়ি ‘ ..স্ত্রী : এগুলো ওনাকে কখন খাওয়াব ?’ ডাক্তার : না না ! ওগুলো আপনার জন্যে ‘ ! 😉


সিংহ দিনে ১৫ ঘন্টা ঘুমায় , গাধা ১৫ ঘন্টা খাটে..তাহলে পরিশ্রমই যদি সাফল্যের চাবি হয় , গাধার তো জঙ্গলের রাজা হওয়া উচিত ছিল !!..কুঁড়ে হও , মস্ত রও !


মজার হাসির এস এম এস বাংলা জোকস bangla mojar sms funny joks
আদালতে জজ :অর্ডার অর্ডার ..পল্টু : একটা রোল ,একটা কোকাকোলা ,জজ :শাট আপ ! পল্টু :না না ..একটা পেপসি ..!


বিশ্ব সৃষ্টির সময় ভগবান মুখ তৈরি করতে করতে এত ক্লান্ত হয়ে গিয়েছিলেন ,যে চিনে পৌঁছে শুধুই কপি -পেস্ট -কপি -পেস্ট করে দেন ..;-)


মেয়ে এক ভিখারীকে দেখে ,’আচ্ছা তোমাকে কোথায় যেন দেখেছি ‘..ভিখারী :’আরে,চিনতে পারলেন না !আমরা তো ফেসবুক ফ্রেন্ড ..!!


রন্টু : আমি গান গাইবার সময় তুই রাস্তায় গিয়ে দাড়িয়ে থাকিস কেন রে ?..ঘন্টু : গানটা আমি গাইছি না , সেটা লোককে জানানোর জন্যে ..;-)


পল্টু : বাহ্ ! দারুন ছবি একেছেন তো ! দেখে জিভে জল চলে এলো ..চিত্রশিল্পী : মানে ! এটাত আধুনিক চিত্রকলা ! এতে জীবনের জটিলতা ফুটিয়ে তুলেছি ..পল্টু : তাই বুঝি ! আমি ভাবলাম জিলিপির ছবি ..!


মাইক্রোসফট যদি ফেসবুককে যদি কিনে নেয়, তাহলে প্রথম নোটিফিকেশন কি হবে ???..’ফ্রেন্ড অ্যাড করতে হলে প্রয়োজনীয় ড্রাইভার ইনস্টল করুন ‘!!


মজার হাসির এস এম এস বাংলা জোকস bangla mojar sms funny joks
টিচার বাংলা ক্লাসে দেখলেন একটি ছাত্র অমনযোগী , তিনি বললেন,’ এই এদিকে তাকাও ! দুটো সর্বনামের উদাহরণ দাও ‘ছাত্র :’কে ? আমি ?’টিচার : ‘ঠিক আছে ‘ !!


গুগল এর সম্পর্কে একটি সত্যি তথ্য ! ৫০ শতাংশ লোক এটি ব্যবহার করে সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে ..বাকি ৫০ শতাংশ লোক এটাকে ইন্টারনেট কানেকশান ঠিক আছে কিনা চেক করার জন্যে ব্যবহার করে !!


বন্ধু : কিরে মন খারাপ করে বসে আছিস কেন ?? পল্টু :’এক বন্ধুকে তিন লাখ টাকা ধার দিয়েছিলাম প্লাস্টিক সার্জারির জন্যে ..’বন্ধু : ‘তো ? সে ফেরত দিচ্ছে না ?!’পল্টু :সার্জারির পরতো তাকে চিনতেই পারছি না ‘!!


কারো বাড়িতে গেলে , সাধারণ মানুষ : বাহ্, বাড়িটা খুব সুন্দর তো ‘ আমি : ‘Wi-Fi পাসওয়ার্ডটা কি ?’ !!


কাজে দায়বদ্ধতার চরম নিদর্শন : ব্যক্তি লাইব্রেরীতে গিয়ে , ‘ আত্মহত্যার উপর একটা বই দিন তো।’ লাইব্রেরিয়ান তার দিকে একটু তাকিয়ে , ‘বইটা ফেরত কে দিতে আসবে ?’


নিচের মেসেজটি কেবলমাত্র স্মার্ট এবং বুদ্ধিমান মান লোকেদের জন্যে। …………………….আপনি যদি এটা পেয়ে থাকেন , সেটা অবশ্যই টেকনিক্যাল প্রবলেম ! 😉


একটা পাগল আয়না দেখে ভাবতে লাগলো , একে কোথায় যেন দেখেছি। কিছুক্ষণ পর, ‘আরে এই লোকটাই তো সেদিন আমার উল্টোদিকে বসে চুল কাটছিল !’..!!


এক ব্যক্তি : স্যার , আমার স্ত্রী হারিয়ে গেছে ! পিওন : এটা পোস্ট অফিস ! থানা নয় ! ব্যক্তি : ও ! দুঃখিত ! আসলে খুশির চোটে কোথায় যাচ্ছি , কি করছি কিছুই জানি না ! 😉


নান্টু : জানিস, আমি গোয়েন্দা উপন্যাস সব সময় মাঝামাঝি থেকে পড়া শুরু করি, তাতে মজাটা বেশি হয়। ‘ বান্টু : কীকরে ? নান্টু : তখন শুধু উপন্যাসের শেষ না, শুরুটা জানারও কৌতূহল থাকে !


স্বামী: জলদি ঘরের সব দামি জিনিসপত্র লুকিয়ে ফেলো ! আমার কিছু বন্ধু বাড়ি আসছে। স্ত্রী: কেন !? কি হবে ? তোমার বন্ধুরা কি সেসব চুরি করবে ? স্বামী: না ! নিজেদের জিনিস চিনে ফেলতে পারে !


পল্টু : রোজ সকালে ২০ টা মেয়ে আমার জন্যে অপেক্ষা করে ! বল্টু : কেন !!?? পল্টু : আরে আমি গার্লস কলেজের বাস ড্রাইভার !


১ম বন্ধু: জানিস, আমার ফেসবুক, টুইটার, গুগল প্লাস—সব কটায় অ্যাকাউন্ট আছে । ২য় বন্ধু: বলিস কি রে ! তোর তো তাহলে জীবন বলে কিছু নেই। ১ম বন্ধু: ও তাই তো ! জীবনের লিঙ্কটা সেন্ড করিস তো !


শিক্ষক : বল তো পল্টু, মুরগিরা কেন জিরাফের মতো লম্বা হয় না ?’ পল্টু: কারণ, তাহলে ডিম মাটিতে পড়েই ফটাস করে ভেঙে যেত!!


স্ত্রী : আমাদের পাশের বাড়ির ভদ্রলোক প্রতিদিন অফিসে যাবার সময় ওনার স্ত্রীকে চুমু খান। তুমিও তো করতে পারো ? স্বামী : আরে আমি কি করে করবো !? আমার তো ওনার স্ত্রীর সাথে কোনো পরিচয়ই নেই !!


মজার হাসির এস এম এস বাংলা জোকস bangla mojar sms funny joks
একবার আমার আর বাঘের মধ্যে লড়াই হচ্ছিল…আমি দৌড়ে পালিয়ে এসেছিলাম.. কেন ??! আরে বাঘটাকে বাঁচাতে ! ..নইলে আমায় তো তুমি চেনোই ..! 😉


‘বই খোলো , মোবাইল বন্ধ করো এবং পড়তে বসো। ‘ ——– বিধিসম্মত সতর্কীকরণ ;উক্ত প্রচেষ্টা গুলি পেশাদার ব্যক্তিদের দ্বারা সম্পাদিত। দয়া করে বাড়িতে চেষ্টা করবেন না ! 😉


কুমোর: আমার বানানো ঠাকুর দিয়ে সবাই কত উন্নতি করছে , কিন্তু আমার হচ্ছে না কেন ? ঠাকুর : হবে কি করে ?, তুমি তো কাজই শুরু কর আমার পিছনে বাঁশ দিয়ে ..!


শিক্ষক: তোমার মতো মেয়ে পরীক্ষায় ফেল করবে ভাবতে পারিনি …মেয়ে: স্যার, বাবা বলেছেন ফেল করলে বিয়ে দিয়ে দেবে ,তাই সুযোগটা হাতছাড়া করলাম না ..!


একটা মশার বাচ্চা প্রথমবার উড়তে গেল | ফিরে আসার পর তার বাবা জিগ্যেস করলো, কি রে কেমন লাগলো ? মশার বাচ্চা : দারুন লাগলো ! যেখানেই গেলাম সবাই খুব হাততালি দিয়েছে !!


ফেসবুক হলো অনেকটা ফ্রিজের মতো। একটু পরপর খুলে দেখতে ইচ্ছা হয়, ভালো কিছু আছে কি না !!;-)


সাধু:আপনি কম করে একশ বছর বাঁচবেন. মানুষ : যদি না বাঁচি ? সাধু: তাহলে এসে আমার দু গালে দুটো চড় মারবেন .
মজার হাসির এস এম এস বাংলা জোকস bangla mojar sms funny joks


শিক্ষক : তোমাদের মধ্যে অলস কে ? ছাত্র: জানিনা স্যার.শিক্ষক: তোমরা জানো, যখন আমি লিখতে দিই, কে না লিখে বসে থাকে ? ছাত্র: আপনি স্যার !


ডাক্তার : আরে আপনি! বহুদিন আপনার কোনো খোঁজ-খবর নেই! কোথায় ছিলেন?’ রোগী : অসুস্থ ছিলাম !


হোটেলে এক ব্যক্তি : আরে আপনাদের চায়ে কেরোসিনের গন্ধ বেরোচ্ছে যে ! মালিক : তাহলে ওটা চা নয় , কফি দিয়েছে ভুল করে | কারণ চা তে লোকে পেট্রলের গন্ধ পায় ..!!


এক কিপটে তার হাত কাটছিল ..বন্ধু : একি ! তুই কি করছিস ? কিপটে : আরে ডেটল ঢালতে গিয়ে হাতে পরে গেছে ..তাই হাতটা একটু কেটে নিছি | !!


মজার হাসির এস এম এস বাংলা জোকস bangla mojar sms funny joks
ব্যক্তি : তোমাদের সেই পুরানো রাঁধুনি চলে গেছে না ? বেয়ারা অবাক হয়ে : হ্যা স্যার | আপনি কি করে জানলেন ? খাবার কি খারাপ হয়েছে ? ব্যক্তি : না তা নয় , আগে সাদা চুল পেতাম , এখন কালো পেলাম ..!


একটা পিঁপড়ে হাতির ওপর বসে যাচ্ছিল | এমন সময় সামনে একটা নড়বড়ে সেতু পড়ল | সেটা দেখে পিঁপড়ে হাতিকে বলল : কিরে যেতে পারবি ? না আবার নামতে হবে ?!!


পল্টুর গ্রামে নদীর ওপর সেতু হচ্ছিল। বিল্টু : খুব ভালো হলো ..পল্টু : হ্যাঁ , এতদিন রোদের মধ্যে সাঁতার দিয়ে নদী পার হতে হতো, এবার ছায়ার মধ্যে সাঁতার দিয়ে যেতে পারব ..!!


রোগী : ডাক্তার, মগজ ছাড়া ক’বছর বাঁচা যায়? ডাক্তার : আপনার বয়স কত ? !


প্রচন্ড খিদে নিয়ে হোটেলে খেতে বসেছেন এক ব্যক্তি । মাছটা মুখে দিয়েই রেগে আগুন হলেন তিনি : এই ব্যাটা ! মাছ পচা কেন ? ডাক তোর মালিককে, মালিক কোথায় ? ‘বেয়ারা : পাশের হোটেলে খেতে গেছেন, স্যার।!


মজার হাসির এস এম এস বাংলা জোকস.


জোনাকির আলো জেলে
ইচ্ছের ডানা মেলে., মন চায়
হারিয়ে যাই., কোনো এক দুর
অজানায়. যেখানে আকাশ মিশে
হবে একাকার., আর তুমি
”রাজকুমারী“ হবে শুধু আমার…


মনটা দিলাম তোমার হাতে
যতন করে রেখো,,হৃদয় মাঝে ছোট্ট
করে আমার ছবি এঁকো.স্বপ্ন গুলো
দিলাম তাতে আরও দিলাম আশা ,,
মনের মতো সাজিয়ে নিও আমার
ভালবাসা….


কটি প্রকৃত ভালবাসা হতে
পারে দৈহিক অথবা ঐশ্বরিক| সত্য
ভালবাসা হচ্ছে,, এমন কিছু যা
শাশ্বত ও অধিক শান্তিপূর্ন…|


চোখে আছে কাজল কানে
আছে দুল,,ঠোট যেন রক্তে রাঙা
ফুল,চোখ একটু ছোট মুখে মিষ্টি
হাসি,, এমন একজন মেয়েকে সত্যি
আমি ভালোবাসি…।


কটা আকাশ হেরে গেলো,,
হারিয়ে তার মন.,. অন্য আকাশ হটাৎ
হল চাঁদের প্রিয়জন.. তবুও তার
ভালবাসা চাঁদের ভালো চায়,,
নতুন আকাশ চাঁদকে যেন সুখের
ছোঁয়া দেয়….!!


ভালবেসে এই মন,, তোকে চায়
সারাক্ষন। আছিস তুই মনের মাঝে,
পাশে থাকিস সকাল সাঝেঁ। কি
করে তোকে ভুলবে এই মন,, তুই যে
আমার জীবন।। তোকে অনেক
ভালবাসি…


যদি বৃষ্টি হতাম.. তোমার
দৃষ্টি ছুঁয়ে দিতাম। চোখে জমা
বিষাদ টুকু এক নিমিষে ধুয়ে
দিতাম। মেঘলা বরণ অঙ্গ জুড়ে তুমি
আমায় জড়িয়ে নিতে,,,কষ্ট আর
পারতো না তোমায় অকারণে কষ্ট
দিতে….!


ফুলে ফুলে সাজিয়ে রেখেছি
এই মন,,, তুমি আসলে দুজনে সাজাবো
জীবন, চোখ ভরা স্বপ্ন বুক ভরা আশা,,,
তুমি বন্ধু আসলে দেবো আমার সব
ভালবাসা……


টাপুর টুপুর বৃষ্টি লাগছে দারুন
মিষ্টি, কী অপরুপ সৃষ্টি দেয়
জুড়িয়ে দৃষ্টি,,, বৃষ্টি ভেজা সন্ধ্যায়
তাজা ফুলের গন্ধয়ে,,, মনটা নাচে
ছন্দে উতলা আনন্দে,,,জানু তোমার
জন্য….


এক পৃথিবীতে চেয়েছি
তোমাকে,,,, এক সাগর ভালবাসা
রয়েছে এ বুকে ,,,, যদি কাছে আসতে
দাও, যদি ভালবাসতে দাও, এক জনম
নয় লক্ষ জনম ভালবাসব তোমাকে…..


বাংলা লাভ এসএমএস.

বোকা বানানোর এসএমএস, Facebook Funy Status


আলু পটল তরকারি,মেয়েদের মন সরকারি ।
পেঁয়াজ রসুন আদা,মেয়েরা সব গাঁদা ।
হারি পাতিল কলস,মেয়েরা সব অলস !
লাল নীল কালো, ছেলে সবাই খুব ভালো ॥


জল পড়ে পাতা নড়ে।মহা গাঁধা এসএমএস পড়ে।
ওরে গাঁধা রাগিস না। বোকার মতো হাসিস না।
এই এসএমএস পড়বি যত, বুদ্ধি হবে গাঁধার মতো।


এখন আমার হাতে এক বোতল বিষ।
এত জ্বালা আমার সহ্য হয় না।
জানি এটা পাপ। এত যন্ত্রণা আর ভালো লাগে না।
তাই আমি যাচ্ছি ………ইদুর মারতে।


চোখ বুজে দেখো স্বপ্ন দেখো কি না,
পা বাড়িয়ে দেখো পথ খুজে পাও কি না,
মন বাড়িয়ে দেখো কেউ ভালোবাসে কি না,
হাত বাড়িয়ে দেখো …….কেউ পয়সা দেয় কিনা।


আপনে একটা গরু, না একটা ছাগল,
না একটা ভেড়া, না না না বাজার থেকে
একটা দেশী মুগরী কিনে আমাকে
দাওয়াত দিয়ে খাওয়াবেন।


এক বছর পর দেখলাম, তারপর ধরলাম,
ভালো লাগল একটু টিপলাম,
নরম লাগল তারপর একটু
চুষে দিলাম মজা লাগল।
তাইতো বলি বছরের প্রথম
পাকা আমের স্বাদ-ই আলাদা


এই চলোনা ওই দিকে নির্জনে যাই Plz না বলোনা।
আরে এত করে বলছি তাও যাবে না ?
……ওই বেটা না গেলে বল অন্য রিকশা ডাকি।


এইযে ভাইয়েরা শুনছেন,
আপনারা সবাই
গরু.
ছাগল.
ভেড়া.
মহিষ.
গাধা.
শুকোর.
বানর.
কুকুর.

পালন করিবেন ।


সবাই রাতে দেয়, কেও সময় পেলে দিনেও দেয়,
টানা ১ ঘন্টা আবার ২ ঘন্টা ও দেয়, কেও কেও সারা রাত দেয়,
কেও আবার সকালেও দেয়!
দেওয়ার সময় পুরা গরম হইয়া যায় । ……

এভাবেই সবাই মোবাইল চার্জ দেয়! হে হে হে ।”


অনেক মেয়ে “মুলা” দিয়ে করে,
আবার অনেক মেয়ে “গাজর” দিয়ে ও করে,
আবার অনেক মেয়ে “শষা” দিয়ে ও করে।
আবার সব কিছু একসাথে দিয়ে ও করে।
কি করে জানো ?? আরে সালাদ তৈরী করে।


হিমালয়”থেকে নয়.
ওই দুর “আকাশ”থেকেও নয়.”
সাত সাগর”13 নদীর”ওপার থেকে ও নয়
এই “হৃদয়ের”গভীর থেকে বলছি,ভিশন ‘ঠান্ডা’লাগতাছে!


তোমার জন্যে হতে পারি ভ্যানের ওই ঝালমুড়ি ওয়ালা।
তোমার জন্য হতে পারি
রাস্তার পাশের আঁচারওয়ালা।
ফ্রীতে দিবো ঝালমুড়ি আর ফ্রীতে দিবো আঁচার।
ভালো যদি না বাসো তবে দিবো আছাড়।


দু হাত বাড়িয়ে আকাশ পানে চাও,
নিজেকে পাখি মনে হবে।
জোছনা রাতে চাঁদের পানে চাও,
নিজেকে পরি মনে হবে।
মাটির সবুজ ঘাসের পানে চাও,
নিজেকে ছাগল মনে হবে।


চাই না আমি “শাকিব খান” এর প্রিয়া,
চাই না আমি নায়িকা “ঐশরিয়া”
চাই আমি তোমার মত
এক্সপার্ট “কাজের বুয়া”। কি হবেনা??


আমি আমার এক বন্ধুর বাসায় বেড়াতে গেলাম।
রাতে ঘুমের ঘোরে দেখলাম আমাকে চুমু দিচ্ছে।
আমি সহ্য করতে না পেরে
উঠে মশা মেরে আবার ঘুমিয়ে পড়লাম।
আপনারা কি ভেবেছিলেন??


সে আসলো, আমার উপর বসলো,
আমাকে জড়িয়ে ধরলো, পরে কামর, চুমু দিল।
তারপর নিজের প্রয়োজন মিটিয়ে চলে গেল।
খারাপ চিন্তা ভাবনা বাদ দিয়ে ভালো চিন্তা ভাবনা কর।
ঐটা একটা মশা ছিল।


অদ্ভুত কিছু আবেগ, অজানা কিছু অনুভূতি।
অসম্ভব কিছু ভালো লাগা, হয়তো বা কষ্টের ভয়,
একাকীত্ব নিরবতা।
এই নিয়ে আমাদের টয়লেটে বসে থাকা।


বেশিরভাগ মানুষ রাতে করে,
কেউ কেউ আবার দিনেও করে।
কেউ টানা ত্রিশ মিনিট করে,
কেউ কেউ আবার এক ঘন্টা ও করে।
কেউ সারারাত করে,
এভাবেই তো মানুষ মোবাইল চার্জ করে।


এইযে ভাইয়েরা শুনছেন,
কুকুরের বাচ্চারা,
শুয়োরের বাচ্চারা,
বানরের বাচ্চারা,
গাধার বাচ্চারা,
বিড়ালের বাচ্চারা,
শেয়ালের বাচ্চারা যদি কামরায়,
তবে কোন মলম লাগাবেন জানেন?


(হ্যাঁ/না) দিয়ে নিচের শূন্যস্থান পুরণ কর।
1/— আমি মানুষ না।
2/— আমি ফাজিল।
3/— আমার মতো পাগল আর নাই।
4/— আমি বেকুব।
5/—আমি গাধা।


যেখানে ভালোলাগা, সেখানেই ভালোবাসা।
যেখানে ভালোবাসা, সেখানেই প্রেম।
যেখানে প্রেম, সেখানেই ব্যাথা।
আর যেখানে ব্যাথা, সেখানেই টাইগার বাম মলম।


কি দিন আইছে রে, বাতাস বইতেছে,
পাখি গান গাইতেছে, গরু ঘাস খাইতেছে,
জিনিয়াসরা এস.এম.এস করতাছে,
আর আবালটায় এস.এম.এস পড়তাছে।


mojar status bangla.


ওরে মন কথা শোন, যাবি চলে বান্দরবন,
বানরের মত সবাই ঝুলবি নাকি বল?
ওরে বাঁচাও আমায়, একটা বানর আমার পিছু নিয়েছে।
সেই বানরতা এস এম এস পড়তেছে।


এক দিন তোমার জীবনে একটি সুন্দর মেয়ে আসবে।
সে তোমাকে ভালোবাসবে KISS করবে।
আবার তোমাকে জড়িয় ধরে বলবে ,,,,,,,,,,,
আব্বু আমাকে একটা চকলেট কিনে দাও।


একটি ছাগলের চারটি বাচ্চা হয়েছে। একটি বাচ্ছা তার মাকে জিগাসা করল, মা আমার বাবা কোথায়? ছাগলটা বল্ল চুপ কর তোর বাবা এখন SMS পরছে।


হিজরা: বাবা আমার বিয়ে হবে না?
বাবা: হবে চিন্তা করিসনা,তোর বিয়ের জন্য যাকে ঠিক করেছি সে এখন Sms পড়ছে, Sms পড়ে লাইক না দিলে মনে করবি সে তোর স্বামী।


নারী তুমি করিওনা রুপের বড়াই,
সবাইতো জানে তোমার প্রিয় বনধু রান্না ঘরের কড়াই।
যতই দেখাও তুমি রুপের ঝর্ণা,
করতে হবে তোমাকে তরকারি রান্না।


তুমি আমার অচিন পাখি তোমার নাম টিয়া,
সুন্দর একটা বাদর পেলে তোমার দিতাম বিয়া।


আম গাছে আম ধরে,নারিকেল গাছে ডাব,
ছেলেদেরকে মিসকল মারা মেয়েদের সভাব ।
গাছের বল লতাপাতা মাছের বল পানি
এ যুগের মেয়েরা চায় পঁয়সাওয়ালা স্বামী ।।


এ দুটি চোখে স্বপ্ন ছিল মনে ছিল আশা।
গরুর ঘরে থাকবে তুমি মারবে অনেক মশা।
ভাবনা ছিল খাবে তুমি রাস্তা ঘাটে মার,
কেন তুমি চলে গেলে গরু নিয়ে আমার !


তুমি বির, তুমি দুর্জয়,
তুমি বাঙ্গালি, তুমি সাহসী,
তুমার বুকে অনেক জোর,
তুমি আমাদের গ্রাম’ এর মুরগী চোর!


আমাদের দেশে হবে সেইমেয়ে কবে,
মিসকল না দিয়ে,ডাইরেক্ট কল দিবে ……
পাঁচজনকে মন না দিয়ে একজনকে দিবে,,
সারা জীবন একজনকে ভালোবেসে যাবে………!!!


তোমায় দেখেছি ফাগুনেরো সাজে,
তোমায় দেখেছি স্বপ্ন মাঝে। পুকুর পাড়ে,
ঝিলের ধারে, দেখেছি তোমার ২টা লম্বা ঠ্যাং,
তুমি যে আমার প্রিয়কোলা ব্যাং।


আপনার ব্যাপারে ৬টি বিষয়জেনে নিন।


১। আপনি এত অলস যে সব তুমি পড়েন নি
২। আমি ওখানে একটা আমি লিখেছি তা আপনি খেয়াল করেন নি।
৩।আপনি এখন সব তুমি গুলো ভালো ভাবে পরে নিছেন।


রোগ হলে ডাক্তারের কাছে যাও।
কারণ ডাক্তার কে খেয়ে বাঁচতে হবে।
ঔষধ কেনো, কারণ দোকানদার কেও খেয়ে বাঁচতে হবে।
কিন্তু তুমি ঔষধ খেওনা,,
কারণ তোমাকেও বাঁচতে হবে।


যখন তোমার একা লাগবে,
তুমি চারদিকে কিছুই দেখতে পাবে না,
দুনিয়া টা ঝাপসা হয়ে আসবে।
তখন তুমি আমার কাছে এসো।
. . তোমাকে চোখের ডাক্তার দেখাবো।


ফুলের মাঝে ভ্রমর আসে,
নদীর ওপর নৌকা ভাসে,
শিশির নাচে সবুজ ঘাসে,
রাতের মাঝে জোছনা হাসে।
আর কিছু মেয়েদের ভালোবাসায় ফরমালিন আছে।


Bangla funny sms for girls and boys


কবি বালিকাদের উদ্দেশ্যে
বলেছেন-
…….রমণীদের সুন্দর দেখাতে
যা কিছু কল্যাণকর তার……….. 🙂 🙂
…….অর্ধেক করিয়াছে আটা-ময়দা :p :p
আর অর্ধেক করিয়াছে ফটো-এডিটর… :

কি আর কমু দুঃখেরর কথা…
হারফিক..হুইলপাওডার..সেবলন..
ভিকসল….ডেটল….সার্ফেসল..টয়লেট ক্লিনার..
সবকিছু দিয়া ধুয়ে দেখছি তাও যায়নি মনের ব্যাথ্যা

বাবা:তোর মা কে বলে দে আমার জন্য
কষ্ট করে রান্না-বান্না করতে হবেনা,আমি
খাবো না।
মা:তোর বাবাকে বলে দিস,কষ্ট করে রান্না
করেছি ফেলে দেওয়ার জন্য নয়।কাল থেকে
যেন নিজের খাওয়ার ব্যবস্থা নিজে করে নেয়।
আর হ্যাঁ, আমি রাতে খাবোনা।
রাত ১০টায় তিন পিস্ ইলিশ মাছ খেতে
টুবাই এর কোনো কষ্টই হলো না।
“ঠান্ডা যুদ্ধের ফলাফল”

ক্লাস দশম শ্রেনীর এক ছাত্র…
ঐ ক্লাসের এক মেয়েকে…
“আই লাভ ইউ” লিখে চিঠি দিল…!!! .
মেয়েটি রেগে গিয়ে চিঠি… স্যারকে দেখালো… .
চিঠি পড়ার পর স্যার…
ছেলেটিকে অনেক পেটালো…!!! .
অভিমানী ছেলেটি কয়েক…
দিন আর স্কুলেই গেলনা…!!! .
ইতিমধ্যে ছেলেটির প্রতি…
মেয়েটিরও মায়া হয়ে গেল। আর সেও ছেলেটির…
প্রেমে পড়ে গেল…!!! .
একদিন মেয়েটি ছেলেটির.. .
একটি বই এর… শেষের পৃষ্ঠায়…
“আই লাভ ইউ টু” লিখে দিলো… .
কিন্তু ছেলেটির মন কিছুতেই গলল না…
মেয়েটি ২ বছর ধরে রিপ্লাইয়ের…
অপেক্ষায় থাকল, কিন্তু ছেলেটি আর…
রিপ্লাইই দিলনা…!!! .
বলেন তো কেন…!!!…?
আসলে,মেয়েটির বুঝা উচিত ছিল…!!!
“কিছু কিছু ছেলেরা বই- এর শেষের পৃষ্ঠা…
খোলা তো দুরের কথা, বই-ই খুলে
দেখেনা…!!!……….. .

স্যার:-রামনবমী কি?
ছাত্র:-স্যার গলা অবধি রাম খেয়ে নো বমি
তাকে বলে রামনবমী….

দুধে হরলিক্স মিশিয়ে খেলে বুদ্ধি
নাকি বাড়ে,তালে সরাসরি গরুকে
হরলিক্স খাওয়ালেই তো হয়।

মার্কেটে আসলে নিজেকে খুব
সিলেব্রেটি মনে হয় ???
চারপাশ থেকে শুধু ডাকে আর আমি
সবাইকে সময় দিতে পারি না ????

ডাক্তার : তুমি পাগল হলে
কিভাবে ????
পাগলঃ- পাগল কি হইচি সাধে
আমি এক বিধবা মহিলারে বিয়ে
করছিলাম ।
তাঁর এক যুবতী মেয়ে ছিল
তাকে বিয়ে করল আমার
বাবা
তো আমার মেয়ে হয়ে গেল
আমার মা
এবং আমি হয়ে গেলাম আমার
বাবার শশুড় ।
তাঁর ঘরে একটা মেয়ে হলো
সে
হলো আমার বোন কিন্তু আমি
তার নানীর জামাই ।
সে দিক থেকে সে আমার
নাত্নীও
এবাভে আমার একটা পোলা
হইলো ।
তো আমার পোলা আমার বাপের
শালা
আর আমি আমার পোলার
ভাইগ্না ।
ডাক্তারঃ চুপ কর চুপ কর,তুইতো
আমারে ও পাগল বানাইয়া দম নিবি …..

এই সিঙ্গেল জীবনের দুঃখে
বাড়ি-ঘর ছেড়ে কবে সাধু
সন্ন্যাসী হয়ে চলে যেতাম ,
শুধু মায়ের হাতের রান্নাটা
বারবার আটকে দিচ্ছে।

স্ত্রী:-আগে আমার শরীর পেপসির
বোতলের মতো ছিল!
স্বামী:-সে তো এখনও আছে।
স্ত্রী:-সত্যি??
স্বামী:-হ্যাঁ আগে ৩০০মিলিলিটার এর
ছিল এখন দু-লিটারের।

দোল দোল দুলুনি,
পড়াশোনা করিনি,
এক্সাম আসবে যখুনি,
বাঁশ টা খাবো তখুনি।

বিয়ে করলে ঝগড়াটে একটা
মেয়েকেই করবে।
চুপচাপ তো কাজের মেয়েও থাকে

স্কুলের পিছনের পুকুরে হেডমাস্টার
ডুবে যাচ্ছিল ,
এক ছাত্র এটা দেখে তাঁকে বাঁচানোর
বদলে স্কুলের দিকে ছুটতে লাগলো,
আর বলতে লাগলো-“কাল ছুটি,
কাল ছুটি,কাল ছুটি”

আচ্ছা বিষের এক্সপায়ারী ডেট পেরিয়ে
গেলে বিষটা কি আরো বিষাক্ত হয়ে যায়
নাকি বিষক্রিয়া নষ্ট হয়ে যায়?

স্ত্রী:-রোজ কতবার বলবো যে আমি
তোমার কাছে
আর ফিরে যাবনা,তোমার সাথে আমার
সব সম্পর্ক
শেষ,আমি বাপের বাড়িতেই থাকবো,
তাও রোজ ফোন
করো কেন?
স্বামী:-রোজই ভয় পাই যদি মত বদলাও,
তাই প্রতিদিন
নিশ্চিত হয়ে নি।

জঙ্গলে এক চিতা বিড়ি খাচ্ছিল…,
এক ইঁদুর এসে বলে, “ভাই নেশা ছেড়ে দাও,
আমার সাথে এসো, দেখ জঙ্গল কত সুন্দর।”
চিতা ইঁদুরের সাথে যেতে লাগলো….
সামনে হাতি ড্রাগ নিচ্ছিল।
ইঁদুর হাতিকেও একই কথা বলল।
এরপর হাতিও ওদের সাথে চলতে শুরু করলো।
কিছুদুর এগিয়ে তারা দেখল বাঘ হুইস্কি খাচ্ছে।
ইঁদুর তাকেও একই কথা বলার সাথে সাথে বাঘ
হুইস্কির গ্লাস রেখে ইঁদুরকে দিল কষিয়ে এক
থাপ্পড়।
হাতি তো অবাক..!!
“বেচারাকে মারলেন কেন..?”
বাঘ বলল, “এই শালা কালকেও গাঁজা খেয়ে
আমাকে জঙ্গলে ৩ঘণ্টা ঘুরিয়েছিল”।

পৃথিবীতে এমন একটি সাপ আছে যা
০.৫ সেকেন্ডেই একটু একটু করে বড়
হতে পারে, এটি এতটাই বিষাক্ত যে,
এর মুখ যদি তার নিজের শরীরও
স্পর্শ করে তাহলে সাপটা সাথে
সাথে মারা যায়, এই সাপটিকে
পাওয়া
যায়…….
শুধুমাত্র “নোকিয়া ১১০০” মডেলের
মতো ফোন গুলোর স্নেক গেমে।
মনোযোগ সহকারে পড়ার জন্য
ধন্যবাদ

তোমাকে নিয়ে 4টি মজার কথা….
>তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,
তুমি,তুমি,তুমি তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি তুমি,
তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি
তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি,তুমি ।।।।
1) তুমি এত অলস সব তুমি গুলো পরলেই না।
2) তুমি দেখলে না যে তার মধ্যে একটা ‘আমি’ আছে।
3)তুমি এখন দেখছ যে ‘ আমি ‘ আছে কিনা।
4)দেখলে ‘ আমি ‘নেই।
—-এখন তুমি বিখ্যাত বোকা হলে।
রেগে যাওয়ার কোনো কারণ নেই।
তুমি যেমন বোকা হলে সেই রকম বোকা
হলে মেসেজ টি সবাইকে সেন্ড করো।।।।।।

স্যার::একটি ট্রেন
ঘন্টায় ৭০ মাইল যায়,
তাহলে আমার বয়স
কত????
ছাত্রগণ অবাক
এটা কোন প্রশ্ন হল
নাকি?
বল্টু::কিছুক্ষনপর
পেছন থেকে হাত
উঠালো স্যার আমি
পারব।
স্যার::তাহলে বলতো
দেখি?
বল্টু:: আপনার বয়স
৪০।
স্যার::হ্যাঁ, কি করে
বুঝলি???
বল্টু::আমাদের পাড়ায়
একজন আছে আধা
পাগল তার বয়স ২০।
আর আপনি পুরা পাগল
তাই আপনার বয়স ৪০।
স্যার বেহুশ

বল্টু স্কুলে দেরি করে এসেছে,
ইংরেজি ক্লাস শুরু হয়ে গেছে
ইংরেজি স্যার বল্টুকে দেখে বলল
স্যারঃ বল্টু
ইউ আর লেট? বাট হোয়াই?
বল্টুঃ স্যার আমাদের গাড়ি কাদার
মধ্যে আটকে পড়েছিল
স্যারঃ নো, নো, নো,
টেল মি ইংলিশ
বল্টুঃ স্যার আওয়ার গাড়ি ওয়াস পড়িং ইন
কাদা নো নড়িং চড়িং, অনলি ভুম ভুম
সাউন্ড করিং ! !!!!!!

স্যার বেঁহুশ


ফানি মেসেজ .


আমার জীবনে বড় চাওয়া, তোমাকে আমার করে পাওয়া, তোমাকে পাওয়ার পড়ে নেই কোন চাওয়া, তোমাকে দেওয়ার জন্য হাতে রাখা ফুল, আশা করি বরন করতে করিবে না ভুল। – এমডি এন ছাফা।

জীবন কাটে ঘোরের মাঝে, জীবন মানে ঘুর। এই জীবনে পাওয়া যায় না প্রিয় নারীর দূর।- এমডি এন ছাফা।


প্রমে করতে লাগে এখন পকেট ভর্তি টাকা, তা না হলে মেয়ে লোকে দিবে ভীষণ ছেঁকা।

– এমডি এন ছাফা।

 শুধু কাছে পাওয়ার জন্য  ভালোবাসা নয়, শুধু ভালো লাগার জন্য ভালোবাসা নয়, নিজের সুখ বিসর্জন দিয়ে ভালোবাসার মানুষকে সুখীই রাখার নামই ভালোবাসা

 হৃদয় জুড়ে আছ তুমি,সারা জীবন থেক. আমায় শুধু আপন করে,বুকের মাঝে রেখ. তোমায় ছেড়ে যাবনাতো, আমি খুব দূরে. ঝড় তোপান যতই আসুক, আমার জীবন জুড়ে”  মিষ্টি চাঁদের মিষ্টি আলো, বাসি তোমায় অনেক ভালো.
মিটি মিটি তারার মেলা, দেখবো তোমায় সারাবেলা.  নিশিরাতে শান্ত ভুবন,  চাইবো তোমায় সারাজীবন.

 টাপুর টুপুর বৃষ্টি লাগছে দারুন মিষ্টি, কী অপরুপ সৃষ্টি দেয় জুড়িয়ে দৃষ্টি,  বৃষ্টি ভেজা সন্ধ্যায় তাজা ফুলের গন্ধয়ে,
মনটা নাচে ছন্দে উতলা আনন্দে, জানু তোমার জন্য

 আমার জীবনে কেউ নেই তুমি ছাড়া, আমার জীবনে কোনো স্বপ্ন নেই তুমি ছাড়া ,  আমার দুচোখ কিছু খোজেনা তোমায় ছাড়া,  আমি কিছু ভাবতে পারিনা তোমায় ছাড়া  আমি কিছু লিখতে পারিনা তোমার নাম ছাড়া,
আমি কিছু বুঝতে চাইনা তোমায় ছাড়া !

যদি বৃষ্টি হতাম…… তোমার দৃষ্টি ছুঁয়ে দিতাম। চোখে জমা বিষাদ টুকু এক নিমিষে ধুয়ে দিতাম। মেঘলা বরণ অঙ্গ জুড়ে তুমি আমায় জড়িয়ে নিতে,কষ্ট আর পারতো না তোমায় অকারণে কষ্ট দিতে..!

জোনাকির আলো জেলে ইচ্ছের ডানা মেলে. মন চায় হারিয়ে যাই. কোনো এক দুর
অজানায়. যেখানে আকাশ মিশে হবে একাকার. আর তুমি ”রাজকুমারী“ হবে শুধু আমার

শীতের চাদর জড়িযে,কুয়াশার মাঝে দাড়িয়ে,  হাত দুটো দাও বাড়িয়ে,শিশিরের শীতল স্পর্শে  যদি,শিহরিত হয় মন। বুঝেনিও আমি আছি তোমার পাশে সারাক্ষণ।


জীবনের স্বপ্ন নিয়ে বেধেছি একটি ঘর,  তোমাকে পাবো বলে সাজিয়েছি প্রেমের বাসর,  আবেগ ভরা মনে অফুরন্ত ভালোবাসা,  সারা দেয় কোনে কোনে শিহরন জাগে মনে,  তোমাকে পাওয়ার আশায়

তাকে দেখে ঘুচে যেত দুর্ভাবনা মোর,  জীবন আমার মনে হতো সুখী দীপ্ত ভোর ।  তার মিলনে পেতাম প্রীতি তার কুটিরে আশা,  তার জীবনে পেতাম জীবন মিটত প্রাণের তৃষা ।

 চোখের আড়াল হতে পার মনের আড়াল নয়,  মন যে আমার সব সময় তোমার কথা কয়, মনকে যদি প্রশ্ন কর তোমার আপন কে ?  মন বলে এখন তোমার লেখা পড়ছে যে !


জোনাকির আলো জেলে ইচ্ছের ডানা মেলে. মন চায় হারিয়ে যাই. কোনো এক দুর অজানায়.  যেখানে আকাশ মিশে হবে একাকার. আর তুমি ”রাজকুমারী“ হবে শুধু আমার.

ও চাঁদ তোমার মতএকটি চাঁদ আমার ও আছে তুমি থাকো বহু দূরে সে থাকে হৃদয় জুড়ে


ভালবাসার এসএম এস


পৃথিবীর যত সুখ যত ভালোবাসা, সবটুকু দিবো আমি তোমায়….. আমার একটাই আশা তুমি ভূলে যেও না
আমায় । বড় বেশী ভালবাসি.


তোমায় । মনটা দিলাম তোমার হাতে, যতন করে রেখো,হৃদয় মাঝে ছোট্ট করে আমার ছবি এঁকো.স্বপ্ন গুলো
দিলাম তাতে আরও দিলাম আশা , মনের মতো সাজিয়ে নিও আমার ভালবাসা

একটি প্রকৃত ভালবাসা হতে পারে দৈহিক অথবা ঐশ্বরিক | সত্য ভালবাসা হচ্ছে এমন কিছু যা শাশ্বত ও অধিক শান্তিপূর্ন|


চোখে আছে কাজল,  কানে আছে দুল,ঠোট যেন রক্তে রাঙা ফুল,চোখ একটু ছোট মুখে মিষ্টি হাসি,এমন একজন মেয়েকে সত্যি আমি ভালোবাসি।


কটা আকাশ হেরে গেলো, হারিয়ে তার মন.. অন্য আকাশ হটাৎ হল চাঁদের প্রিয়জন.. তবুও তার ভালবাসা চাঁদের ভালো চায়,, নতুন আকাশ চাঁদকে যেন সুখের ছোঁয়া দেয়..!!


ভালবেসে এই মন, তোকে চায় সারাক্ষন। আছিস তুই মনের মাঝে, পাশে থাকিস সকাল সাঝেঁ। কি
করে তোকে ভুলবে এই মন, তুই যে আমার জীবন।। তোকে অনেক ভালবাসি


এক পৃথিবীতে চেয়েছি তোমাকে, এক সাগর ভালবাসা রয়েছে এ বুকে ,  যদি কাছে আসতে দাও, যদি ভালবাসতে দাও,
এক জনম নয় লক্ষ জনম ভালবাসব তোমাকে।


ফুলে ফুলে সাজিয়ে রেখেছি এই মন,  তুমি আসলে দুজনে সাজাবো জীবন, চোখ ভরা স্বপ্ন বুক ভরা আশা, তুমি বন্ধু আসলে দেবো আমার সব ভালোবাসা..  পৃথিবীতে সেই সবচেয়ে ধনী। যার একটি সুন্দর মন আছে,, যার মনে নাই কোন অহংকার,, নাই কোন হিংসা। আছে শুধু অন্যের জন্য ভালোবাসা.


যদি চাদঁ হতাম সারা রাত পাহারা দিতাম! যদি জল হতাম- সারা দেহ ভিজিয়ে দিতাম। যদি বাতাস হতাম-তোমার কানে চুপি চুপি বলতাম- আমি তোমাকে ভালোবাসি.


ফোন করতে পারিনা নাম্বার নাই বলে,  খবর নিতে পারিনা সময় নাই বলে,  দাওয়াত দিতে পারিনা বেশি খাও বলে,
শুধু sms করি ভালবাসি বলে!রাত যেভাবেই আসুক, নীরবতা থাকবেই। চাঁদ যেভাবেই থাকুক জ্যোৎসনা ছড়াবেই।

সূর্য যতই
মেঘের আড়ালে থাকুক, পৃথিবীতে আলো আসবে। R নিজেকে যতই লুকিয়ে রাখ না কেনো ভালোবাসা তোমাকে কাছে টানবেই।
তোমার মুখের হাসি টুকু লাগে আমার ভালো, তুমি আমার ভালবাসা বেঁচে থাকার আলো।
রাজার যেমন রাজ্য আছে,  আমার আছ তুমি, তুমি ছাড়া আমার জীবন শূধু মরুভুমি।
ভালবাসার তালে তালে চলব দুজন এক সাথে। কাছে এসে পাসে বসে মন রাখ আমার মনে। শপ্ন দেখবো দুজন মিলে, ঘর কর ছি এক সাথে। আর কি লাগে পৃথিবীতে?   বউ আনব ভালবেসে।

কোটি বছর আগে জন্মে ছিলো তোমার জন্য ভালোবাসা, এখনো অপেক্ষায় আছি তুমি ভালোবাসবে বলে। তোমাকে ধরতে আসিনি এসেছি ধরা দিতে..!

হৃদযের সীমানায় রেখেছি যারে, হয়নি বলা আজো ভালবাসি তারে।  ভালবাসি বলতে গিয়ে ফিরে ফিরে আশি। কি করে বুঝাবো তারে আমি কতটা ভালোবাসি?

বিধি তুমি সবই জানো, জানো মনের কথা, আজো তো পেলাম না আমার বাম পাজরের দেখা,  যে আমায় ভালোবেসে পাশে থাকবে সারাটি ক্ষন,  যে আমায় ভালোবেসে রাংগীয়ে দিবে আমার ভূবন,  বলো না বিধি তার দেখা পেতে আর কতক্ষন

তুমি আমাকে যতই কষ্ট দাও……. আমি তোমাকে আপন করে নেবো,  তুমি আমাকে যতই দুঃখ দাও……
আমি সেই দুঃখকেই সুখ ভেবে নেবো,  তুমি যদি আমাকে ভালোবাসা দাও…..
তোমাকে এই বুকে জড়িয়ে নেবো, আর কখনও যদি তুমি আমাকে ভুলে যাও, আমি তোমাকে সারাটি জীবন…….
নিরবে ভালোবেসে যাবো…….!

তোমার জন্য হয়ত আমি পৃথিবীর সব সুখে এনে দিতে পারব না,কিন্তু এইটা পারব যে,তোমায় সারা জীবন ভালোবাসতে, যা তুমি সারা পৃথিবী খোঁজে ও পাবে না,

পৃথিবীর যত সুখ যত ভালোবাসা সবটুকু দিবো আমি তোমায়….. আমার একটাই আশা তুমি ভূলে যেও না আমায় ।
বড় বেশী ভালবাসি তোমায় ।

কেউ যদি অভিমানে তোমার সাথে কথা না বলে, বুঝে নিবে সে তোমায় আড়ালে মিস করে.. আর কেউ যদি না দেখে কাঁদে, বুঝে নিবে সে তোমায় ভীষণ ভালবাসে..!


যে ভালবাসা বুঝেনা, তাকে ভালবাসা শিখাতে যাবেন না! কারন সে ভালবাসা শিখবে আপনার কাছে, কিন্তু ভালবাসবে অন্য জনকে! আর কষ্ট পাবেন আপনি।


কাউকে দুর থেকে ভালবাসাই সব থেকে পবিত্র ভালোবাসা। কারন, এ ভালোবাসায় কোন রকম অপবিত্রতা থাকে না,
কোন শারীরিক চাহিদা থাকে না। শুধু নীরব কিছু অভিমান থাকে, যা কখনো কেউ ভাঙায় না। কিছু অশ্রু বিন্দু থাকে, যা কেউ কখনো মুছতে আসে না। আর সবার অজান্তে আড়ালে একা যেখানে একজনই রানী/রাজা। কাউকে দুর থেকে ভালবাসাই সব থেকে পবিত্র ভালোবাসা।


“ভালোবাসা” শব্দটা হয় না কখনো পুরানো.. হয় না কখনো মলিন.. হয় না ধূসর কিংবা বর্নহীন.. যা শুধু রংধনুর রঙে রঙিন.. হোক না সেটা এপার কিংবা ওপারের..তারপরেও ভালোবাসা তো শুধুই ভালোবাসা!


শুধু কাছে পাওয়ার জন্য ভালবাসা নয়। শুধু ভালো লাগার জন্য ভালবাসা নয়। নিজের সুখ বিসর্জন দিয়ে ভালোবাসার মানুষকে সুখী রাখার নামই ভালবাসা।যখন কেউ কারো জন্য কাঁদে সেটা হল আবেগ। যখন কেউ কাউকে কাঁদায় সেটা হল প্রতারনা। আর যখন কেউ কাউকে কাঁদিয়ে নিজেও কেঁদে ফেলে! সেটাই হল প্রকৃত ভালবাসা!


মন নেই ভালো, জানিনা কি হলো। পাসে নেই তুমি, কি করি আমি। পাখী যদি হতাম আমি এই জীবনে,
তোমায় নিয়ে উড়ে যেতাম অচিন ভূবনে। তুমি কি যাবে আমার সাথে?


৭ ফেব্রুয়ারি= রোজ ডে। ৮ ফেব্রুয়ারি= প্রপোস ডে। ৯ ফেব্রুয়ারি= চকলেট ডে। ১০ ফেব্রুয়ারি= টেডি ডে। ১১ ফেব্রুয়ারি= প্রমিস ডে। ১২ ফেব্রুয়ারি=hug ডে। ১৩ ফেব্রুয়ারি= কিস ডে। ১৪ ফেব্রুয়ারি= হ্যাপি ভ্যালেন্টাইনস ডে।


আজ না খুব একা একা লাগছে। চোখের সামনে তুমি তবু যেন তোমাকে ছোয়া যায় না। কেন এমন হয় বলোতো !
ভালবাসা বুঝি শুধু কষ্ট দিতেই জানে !  তোমাকে ছাড়া যে আমার নিশ্বাস নিতেও কষ্ট হয় !


ভেবেছিলাম তুমি কতো আপন! ভেবেছি পাশে থাকবে সারা জীবন। কেন তুমি ভাঙলে এই মন?
ভাবিনি কখনো করবে এমন! তারপরও তুমি আমারই জীবন।


কেউ কেউ লাভ করে, আবার কেউ করে ইনজয়। কেউ খাঁয় ছেকা, কেউ হয় একা। কেউ বলে জান, কেউ করে বিষপান। কারো মুখা হাসি, আবার কারো গলায় ফাঁসি, Love Is Not Fun, So সাবধান, আর এখনকার মেয়েরা হয় বেইমান।


তুমি রাজি থাকলে প্রেম করবো, কাজী এনে বিয়া করব, রাগ করলে কিস করবো, দূরে গেলে মিস করবো,
পাশে থাকলে আদর করবো, আর ভুলে গেলে খুব কষ্ট পাবো…!!যদি বলো তোমার কথা মনে পড়ে কতবার? আমি বলব চোখের পাতা নড়ে যতবার। যদি বলো তোমায় ভালবাসি কত? আমি বলব আকাশে তারা আছে যত..!!(যারা ভালবাসা নিয়ে খেলা করে, তারাই ভালবাসা পায়। আর যারা মন থেকে ভালবাসে, তারা ভালবাসা পায়না। ঠিক কিনা?একটু ভালোবাসা দিবি? যে ভালোবাসায় থাকবে না কোন দুঃখ, থাকবে না, না পাওয়ার যন্ত্রনা,
থাকবে না মায়া কাঁন্না, থাকবে শুধু সীমাহীন অনুভূতি,  যেই অনুভূতি কে সাথী করে কাটিয়ে দিবো সারাটা জীবন।


বন্ধু আমি চাইনা তোমার অসীম সুখের ভাগ, কিন্তু যখন থাকবে দুঃখে দিও আমায় ডাক, তোমার মুখে কান্না নয় দেখতে চাই হাসি, মনে রেখো বন্ধু তোমায় অনেক ভালোবাসি !


তুমি যদি বাসো ভালো, চাঁদের মতো দেব আলো, যদি আমায় ভাবো আপন, হব তোমার মনের মতন,
নদী যেমন দেয় মোহনা, তেমনি আমি তোমার উপমা।


ভালবাসার এস এম এস হয়ে থাকবো আমি তোমার হৃদয় জুড়ে, প্রেমের এস এম এস রিংটোন হয়ে বাজবো আমি মিষ্টি মধুর সুরে, কখনো ভেবোনা আমি তোমার থেকে দুরে, বন্ধু হয়ে আছি আমি তোমার নয়ন জুড়ে।


ভালবাসা মানে আবেগ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হৃদয়ের অভ্যন্তরীণ একটা অনুভুতি,
যা কেবল – শুধু মাত্র ভালবাসার মানুষের সামনে ভাষায় অথবা আচরণে প্রকাশ হয়।এক বিন্দু জল যদি চোখ দিয়ে পড়ে, সেই জলের ফোটা সুধু তোমার কথা বলে.. মনের কথা বুঝনা তুমি মুখে বলি তাই,
শত আঘাতের পরেও তোমায় ভালবেসে যাই..!!


অল্প অল্প মেঘ থেকে, হালকা হালকা বৃষ্টি হয়। ছোট্ট ছোট্ট গল্প থেকে, ভালোবাসা সৃষ্টি হয়। মাঝে মাঝে স্বরন করলে, সম্পর্কটা মিষ্টি হয়।


একটা মেয়ে একটি ছেলেকে যত বেশী ভালোবাসে, তার চোখের দিকে তাকাতে সে তত বেশী লজ্জা বোধ করে।
আর একটা ছেলে একটা মেয়েকে যত বেশী ভালোবাসে,  তার বেশী সে তার ভালোবাসার মানুষটিকে হারানোর ভয়ে ভীত থাকে।
নেট থেকে সংরিহিতঃ লিংক সুত্র


এসএমএস বাংলা জন্মদিনের ঈদ এসএমএস


যেটা ভালো লাগে সেটা বন্ধুদের পাঠিয়ে ঈদ শুভেছা জানান।

শুভ রজনী, শুভ দিন,রাত পেরোলেই ঈদের দিন।উপভোগ করবে সারাদিন,ঈদ পাবে না প্রতিদিন।
দাওয়াত রইলো ঈদের দিন।“ঈদ মোবারক”মেঘলা আকাশ মেঘলা দিন ঈদের বাকি ১দিন,কাপড় চোপড় কিনে নিন,গরিব দুঃখীর খবর নিন,


দাওয়াত রইল ঈদের দিন।“ঈদ মোবারক”আজকে খুশির বাঁধ ভেঙেছে, ঈদ এসেছে ভাই ঈদ এসেছে শাওআলের চাঁদ ওই উকি দিয়েছে, সবার ঘরে আজ ঈদ এসেছে সেই দিন আর নয় বেশি দূর, রমযান শেষ হলে কাটবে অপেখখার ঘোর। ঈদ মোবারক

 যে দিন দেখবো ঈদ এর চাঁদ খুশি মনে কাটাবো রাত, নতুন সাজে সাজব সেদিন, সেদিন হলো ঈদের দিন
আনোন্দে কাটাবো সারা দিন! ঈদ মোবারকফুল সুভাষ দেয়, দৃষ্টি মন চুরি করে, খুশি আমাদের হাসায়, দুঃখ আমাদের কাদায়, আর আমার এই এস এম এস


তোমাকে ঈদের সুভেছ্ছা জানায়, “EID মোবারক”নতুন পোশাক পরে নিও, বেশি করে ঈদি নিও।সেমাই খেও পেট ভরে ঘুরো ফের মন ভরে। ঈদ মোবারাক বলো প্রান খুলে।


আনন্দের এই সময় গুলো, কাটুক থেমে থেমে, বছর জুড়ে তোমার তরে, ঈদ আসুক নেমে, “ঈদ মোবারক”


ভোর হলো দোর খোল, চোখ মেলে দেখরে। রোযা শেষ রোযা শেষ, ঈদ চলে এল রে। নতুন জামা পড়ব রে, হাসি খুসি থাকব রে . ঈদ চলে এল সবার দুয়ারে। শুভেচ্ছা রয়লো সবাইকে . ঈদ মোবারক ।


চাঁদ উঠেছে ফুল ফুটেছে দেখবি কে কে আয়, নতুন চাঁদের আলো এসে পড়ল সবার গায় । ঈদ মোবারাক


‘হাসি খুশি রাশি রাশি আজ দুখ নিয়েছে বিদায় সব বেতা ভুলে গিয়ে বুকেতে বুক মিলাউ আজ আনন্দ প্রতি প্রাণে প্রাণে’

 

Leave a Comment